বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৬, ২০১৮, ১০:৩৪:৩৫ পূর্বাহ্ণ
Home » সারাদেশ » রাজশাহী » সাঁথিয়ায় কর্মসুচীর শ্রমিক সুমী ফিরে পেল ছাত্র জীবনে খরচ দিবেন ইউএনও

সাঁথিয়ায় কর্মসুচীর শ্রমিক সুমী ফিরে পেল ছাত্র জীবনে খরচ দিবেন ইউএনও

সাঁথিয়া (পাবনা) সংবাদদাতাঃ
পাবনার সাঁথিয়ায় ৪০ দিনের কর্ম সুচী কাজের প্রকল্প থেকে তুলে নিয়ে শ্রমিককে স্কুলে ভর্তি করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। স্কুলের যাবতীয় খরচ নিজে বহন করবেন ইউএনও। শ্রমিককে ব্যক্তিগত গাড়ী করে স্কুলে নেবার ছবি সামাচিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভায়রাল। নির্বাহী অফিসারের প্রসংশায় সর্বস্তরের জনগণ।

জানা যায়, উপজেলার নাগডেমরা ইউনিয়নে চলমান ৪০ দিনের কর্ম সুচীর কাজের প্রকল্প এলাকা বুধবার পরিদর্শনে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম। প্রকল্প কাজে শ্রমিকের উপস্থিতি কম দেখায় সকল শ্রমিককে ডেকে হাজিরা গ্রহণ করেন তিনি। এসময় সুমি খাতুন (১০) নামক এক শ্রমিকের উপর দৃষ্টি যায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের। অন্য শ্রমিকদের জিজ্ঞাসা করা হলে তারা বলেন, তার নানী মালেকা খাতুনের পরীবর্তে সুমী কাজে এসেছে।
সুমী খাতুন জানান, সে বাবা, মায়ের সাথে থাকেন না। বাবা মায়ের সংসার ভেঙ্গে যাওয়ায় সে নানীর কাছে থাকেন। নানা অন্যত্র বিয়ে করে থাকেন। দারিদ্রতার কারণে সে লেখা পড়া বন্ধ দিয়ে শ্রমিকের কাজ করেন। সে উপজেলার কোনাবাড়িয়া গ্রামের জুয়েল হোসেন ও শিল্পী খাতুনের মেয়ে।
পরে নির্বাহী অফিসার নিজের গাড়ীতে করে সোনাতলা পশ্চীম পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪র্থ শ্রেণিতে সুমীকে ভর্তি করে দেন। তার রোল নং ২৬। ইউএনও এসময় উপস্থিত শিক্ষকদের বলেন সুমীর যাবতীয় খরচ সে নিজে বহন করবেন। এছাড়াও তিনি নাগডেমরা ইউপি চেয়ারম্যান হানরুন অর-রশিদ ও সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মাজহারুলকে সুমীর লেখা পড়ার খোঁজ খবর রাখতে নির্দেশ দেন।
এদিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের ব্যক্তিগত সরকারী গাড়ীতে করে সুমীকে স্কুলে নেবার দৃশ্য এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বায়রাল। বিভিন্ন ব্যক্তি ইউএনও’র ছবি পোষ্ট করে ব্যাপক প্রসংশা করছে। নানা উন্নয়ন মূলক, সামাজিক এবং মানবিক কাজের জন্য তাকে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ ইউএনও বলে আখ্যায়িত করছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, অভাবের জন্য সুমীর মত মেয়েদের লেখা পড়া যাতে বন্ধ না হয় সে দিকে আমাদের লক্ষ্য রাখা দরকার। সমাজের সবাইকে অসহায় অভাবী পরিবারের সাহায্য করা উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *