বুধবার, আগস্ট ১৫, ২০১৮, ১১:২৩:৪৮ পূর্বাহ্ণ
Home » জাতীয় » রংপুরে চিকিৎসক গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট, রোগীদের ভোগান্তি

রংপুরে চিকিৎসক গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট, রোগীদের ভোগান্তি

অনলাইন ডেক্স :
রংপুরে এক চিকিৎসককে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট ডেকেছেন চিকিৎসকেরা। গতকাল রোববার থেকে শুরু হওয়া ধর্মঘটের কারণে বেসরকারি চিকিৎসাসেবা বন্ধ হয়ে গেছে। এর ফলে রোগী ও স্বজনদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
শহরের সেন্ট্রাল ক্লিনিকে গত শনিবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক শিশুর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহত শিশুর মা লাকি বেগম বাদী হয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজের নাক কান গলা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান আবদুল হাইসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে শনিবার রাতে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ চিকিৎসক আবদুল হাইকে গ্রেপ্তার করে।
পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, গাইবান্ধা জেলার খামারবাড়ি এলাকার রেজাকুল হকের স্ত্রী লাকি বেগম ও তাঁর ছয় বছরের ছেলে সিয়াম দুজনই গলায় টনসিলের ব্যথা নিয়ে রংপুর শহরের সেন্ট্রাল ক্লিনিকে ভর্তি হন। সেখানে চিকিৎসা এবং অস্ত্রোপচার বাবদ ২০ হাজার টাকাও পরিশোধ করা হয়। পরে শনিবার সন্ধ্যার পর শিশুটির অস্ত্রোপচার করা হলে অস্ত্রোপচার কক্ষে শিশুটি মারা যায়। বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় লোকজন ক্লিনিক ঘেরাও করে এবং ক্লিনিকের সামনের কাচ ভাঙচুর করে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।
চিকিৎসককে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ ও তাঁর মুক্তির দাবিতে গতকাল রোববার সকাল থেকে সব ধরনের বেসরকারি চিকিৎসাসেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়। সম্মিলিত চিকিৎসক সমাজের ব্যানারে অনির্দিষ্টকালের জন্য বেসরকারি চিকিৎসাসেবা বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়। সম্মিলিত চিকিৎসক সমাজের এই আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা জানিয়েছে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ ও বেসরকারি ক্লিনিক হাসপাতাল ডায়াগনোসিস অ্যাসোসিয়েশন।
সেন্ট্রাল ক্লিনিকের স্বত্বাধিকারী জাকারিয়া হক দাবি করেছেন, শিশুর মৃত্যুর বিষয়টি তদন্ত হওয়া প্রয়োজন। এ নিয়ে একটি পক্ষ শনিবার রাতে ক্লিনিক ভাঙচুর করেছে।
নিহত শিশুর মা লাকী বেগম শনিবার রাতে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার সুস্থ ছেলে। অপারেশন করার সময় সে মারা যায়। আমি এর বিচার চাই।’
চিকিৎসকদের ডাকা ধর্মঘটের কারণে বেসরকারি চিকিৎসাসেবা নিতে আসা শত শত রোগী ও তাদের স্বজনদের চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়তে হচ্ছে। শহরের ধাপ এলাকায় বেসরকারি ক্লিনিক হাসপাতাল ও চিকিৎসকদের প্রাইভেট প্র্যাকটিস বন্ধ রয়েছে। ক্লিনিকে কোনো নতুন রোগীও ভর্তি নেওয়া হচ্ছে না। তবে যাঁরা ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন, তাঁদের সেবা দেওয়া হচ্ছে।
এ বিষয়ে কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাবুল মিয়া বলেন, নিহত শিশুর লাশ রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। শিশুর মৃত্যুর অভিযোগে শিশুটির মা বাদী হয়ে চিকিৎসকসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। গ্রেপ্তার হওয়া চিকিৎসক অসুস্থ হয়ে পড়লে আদালতের মাধ্যমে তাঁকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *