শনিবার, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৮, ৯:১০:৪৫ অপরাহ্ণ
Home » জাতীয় » মির্জাপুরে বহুরিয়া ইউনিয়নে যাতায়াতের জন্য স্বেচ্ছা শ্রমে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ

মির্জাপুরে বহুরিয়া ইউনিয়নে যাতায়াতের জন্য স্বেচ্ছা শ্রমে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, মির্জাপুর(টাঙ্গাইল): টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের লৌহজং নদীর শাখা নদীর উপর একটি পাকা ব্রিজ নির্মান না হওয়ায় এলাকাবাসিকে যাতায়াতের জন্য চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে।শত বছরেও এই নদীর উপর পাকা ব্রিজ নির্মান না হওয়ায় শুকনো মৌসুমে ঝুঁকিপুর্ন বাঁশের সাঁকো ও বর্ষা মৌসুমে খেয়া নৌকায় স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীসহ লোকজনকে পারা পার হতে হচ্ছে বলে এলাকার ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেছেন।এলাকার ১৫ গ্রামের যাতায়াতের জন্য এই স্বেচ্ছা শ্রমে বাঁশের সাঁকো নির্মান করা হয়েছে।আজ রবিবার বহুরিয়া ইউনিয়নের বহুরিয়া গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে স্বেচ্ছা শ্রমে নির্মিত বাঁশের সাঁকো দিয়ে লোকজন যাতায়াত করছে।
বহুরিয়া বাজারের ব্যবসায়ী মো. আনোয়ার হোসেন(৫৬)সহ অনেকেই বলেন, মির্জাপুর উপজেলার অন্য ১৩টি ইউনিয়নের মধ্যে এই বহুরিয়া ইউনিয়ন সবচেয়ে বেশী অবহেলিত।বিশেষ করে যোগাযোগের ক্ষেত্রে এলাকাবাসিদের দুর্ভোগের শেষ নেই।প্রতিটি এলাকার রাস্তা-ঘাটের খুবই দুরাবস্থা।এছাড়া নদী ও খাল-বিলে পাকা ব্রিজ না হওয়ায় জেলা শহর টাঙ্গাইল ও উপজেলা সদর মির্জাপুরের সঙ্গে এলাকাবাসি সরাসরি যোগাযোগ থেকে বঞ্চিত যুগ যুগ ধরে।দক্ষিণ মির্জাপুরের মধ্যে বহুরয়িা, গেরামারা, গজারিয়া, গোহাইলবাড়ি,গবড়া ও ভাওড়া ইউনিয়নের হাজার হাজার লোকজনের প্রতি দিনের যাতাযাত করতে হয় নানা প্রতিকুলতার মধ্যে।কিন্ত মাঝপথে বহুরিয়া এলাকায় নদীর উপর একটি পাকা ব্রিজ না হওয়ায় স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীসহ লোকজনদের যাতায়াতের চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে।এই নদীর উপর একটি পাকা ব্রিজ নির্মান এলাকাবাসির দীর্ঘ দিনের দাবী হলেও আজ পর্যন্ত তা বাস্তবায়ন হয়নি।এ বছর বর্ষা মৌসুমে নদীর চারপাশ খেঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও কঠিন হয়ে পরেছে।সরকারী ভাবে কোন সহযোগিতা না পাওয়ায় এলাকাবাসি নিজেদের উদ্যোগে চাঁদা তুলে একটি বাঁশের সাঁকো নির্মান করেছে।এই নদীর উপর একটি পাকা ব্রিজ নির্মানের জন্য এলাকাবাসি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে বহুরিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো.আব্দুস সামাদ বলেন, আমি অল্প কিছু দিন আগে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি।তিনি বলেন এই নদীর উপর একটি পাকা ব্রিজ নির্মান অতি জরুরী।কিন্ত বরাদ্ধ না আসায় পাকা ব্রিজ নির্মান হচ্ছে না। এখানে একটি পাকা ব্রিজ নির্মানের জন্য তিনি স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।

//এল//

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *