সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০১৯, ৮:৫৭:০৬ পূর্বাহ্ণ
Home » অন্যান্য » মির্জাপুরে প্রেমিকের বাড়িতে দুই প্রেমিকা অতঃপর গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে

মির্জাপুরে প্রেমিকের বাড়িতে দুই প্রেমিকা অতঃপর গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল,স্টাফ রিপোর্টারঃ-
সাব্বির হোসেন(২০) নামে এক প্রতারক প্রেমিকের বাড়িতে দুই প্রেমিক এসে উপস্থিত হওয়ার খবরে এলাকায় তোলপার শুরু হয়েছে। দুই প্রেমিকের মধ্যে স্কুল পড়–য়া এক ছাত্রীদের মায়ের যৌন নির্যাতন ও অপহরনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ প্রেমিকসহ অপর প্রেমিকাকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার গোড়াই ইউনিয়নের বাইমাইল গ্রামে এ চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে। প্রচলিত আ্ইনে মামলার পর আজ সোমবার প্রতারক প্রেমিক সাব্বিরকে জেল হাজতে পাঠিয়েছে এবং প্রতারনার শিকার স্কুল ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার পর টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
আজ সোমবার রাতে মির্জাপুর থানা পুলিশ সুত্র জানায়, বাইমাইল গ্রামের কামরুজ্জামানের ছেলে সাব্বির হোসেন মুন্সিগঞ্জ জেলার পলিটেকনিক কলেজের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। পুলিশ ও এলাকার লোকজন াভিযোগ করেছেন, মোবাইলে প্রতারনার ফাঁদ পেতে সে বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্রীদের সঙ্গে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেম ও শারীরিক সম্পর্ক করে আসছিল। তার প্রতারনার ফাঁদে পরে মির্জাপুর উপজেলার ভাদগ্রাম ইউনিয়নের দাসপাড়া গ্রামের জৈনিক ব্যক্তির কন্যা ও টাঙ্গাইলের কুমুদিনী সরকারী মহিলা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের (২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থী) ছাত্রী এবং একই ইউনিয়নের ইচাইল গ্রামের জৈনেক ব্যক্তির কন্যা ও কুরনী জালাল উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের (২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থী) ছাত্রী। গত শনিবার মোবাইলের মাধ্যমে যোগাযোগ করে ইচাইল গ্রামের জৈনেক ছাত্রীকে বাড়িতে নিয়ে আসে বিয়ের প্রলোভনে। এই ঘটনা দাসপাড়া গ্রামের কলেজ পড়–য়া ছাত্রী জানতে পেরে সাব্বিরের বাড়িতে বাড়িতে উঠে পড়ে অবস্থান নেয়। ঘটনা জানাজানি হলে পুরো এলাকায় হৈচৈ পরে যায় এবং শতশত লোকজন ঐ ঘটনা দেখার জন্য বাড়িতে ভিড় করতে থাকে।
এদিকে ইচাইল গ্রামের স্কুল পড়–য়া ছাত্রীর মা রোজিনা বেগম সাব্বিরকে আসামী করে মির্জাপুর থানায় একটি অপহরনের মামলা দায়ের করেন। মামলার সুত্র ধরে মির্জাপুর থানা পুলিশ বাইমাইল গ্রামে অভিযান চালিয়ে প্রেমিক প্রতারক সাব্বিরকে গ্রেফতার এবং দুই প্রেমিকাকে উদ্ধার করে মির্জাপুর থানায় নিয়ে আসে গতকাল রবিবার রাতে। কলেজ পড়–য়া ছাত্রীর অভিভাবকদের মুচিলেকা নিয়ে তাকে তার পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। স্কুল ছাত্রী শারীরিক ভাবে অসুস্থ্য হওয়ায় ডাক্তারি পরীক্ষার পর আজ সোমবার তাকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।
এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার এসএআই ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. মোরাদ হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, প্রতারক সাব্বিরকে গ্রেফতারের পর জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। কলেজ পড়–য়া ছাত্রীকে মুচিলেকা নিয়ে তার পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েচে। স্কুল ছাত্রীর মা রোজিনা বেগম যৌন নির্যাতন ও অপহরনের মামলা করায় তাকে ডাক্তারি পরীক্ষার পর টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *