বুধবার, মার্চ ২০, ২০১৯, ১০:০৬:২৭ অপরাহ্ণ
Home » অন্যান্য » মির্জাপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় সেনা সদস্য নিহত আটক-৫

মির্জাপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় সেনা সদস্য নিহত আটক-৫

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) স্টাফ রিপোর্টারঃ
মাদক বিক্রির বাঁধা দেওয়ার অপরাধে প্রতিপক্ষের হামলায় ছুটিতে আসা এক সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন। হামলায় আহত হয়েছে উভয় পক্ষের অন্তত ৫ জন। সেনা সদস্য হত্যার ঘটনায় পুলিশ ৫ জনকে আটক করেছে। আজ শুক্রবার টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার এক নং মহেড়া ইউনিয়নের দেওভোগ গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত সেনা সদস্যের নাম মো. আজিজুল মিয়া(৩০), পিতার নাম- মো. আব্দুর রউফ মিয়া।
জানা গেছে, নিহত সেনা সদস্য আজিজুল হক বগুড়া সেনানিবাসে আর্টিলারি কোরে সেনা সদস্য হিসেবে কর্মরত ছিল। তার আইডি নং- আর্টি-৪৩২৬১৮ এবং সেনা সদস্য নং-১২৩০৮৮০। গতকাল বৃহস্পতিবার ৫ দিনের ছুটি নিয়ে আজ শুক্রবার সে গ্রামের বাড়িতে আসেন। গ্রামে এসে জানতে পারেন তার প্রতিবেশী আবু বকর মোল্লার বখাটে ছেলে মাদক সেবী কামরুল ও কয়েকজন বখাটে এলাকায় মাদক সেবন ও বিক্রি করে আসছে।এ নিয়ে গ্রামের কেউ প্রতিবাদ করলেই ঐ মাদক কারবারিরা তাদের নানা ভাবে হুমকি ও ভয়ভিতি দেখায় বলে অভিযোগ রয়েছে। গত বুধবার বখাটে কামরুল ও তার সহযোগিদের মধ্যে নিহত আজিজুলের ছোট ভাই রাসেলের সঙ্গে বাগবিদন্তা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।
এদিকে খবর পেয়ে আজ শুক্রবার সেনা সদস্য আজিজুল ছুটিতে বাড়িতে আসে।এই ঘটনার প্রতিবাদ করলে ৬-৭ জন মাদক বিক্রেতা ও তাদের সহযোগিরা আজিজুল ও তার ছোট ভাই রাসেল(২০) কে ধরে নিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এই ঘটনা জানাজানি হলে গ্রামের ইউপি মেম্বারের সহযোগিতায় মাতাব্বরগন আজ শুক্রবার বিকেলে গ্রাম্য শালিসের মাধ্যমে ঘটনার মিমাংসার জন্য দিন ধার্য করে। সেনা সদস্য আজিজুলের স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তার(২৭) ও ছোট ভাই রাসেল(২০) অভিযোগ করেন, আজ শুক্রবার বিকেলে গ্রাম্য শালিসের কথা থাকলেও সকাল সারে নয়টার দিকে রশিদের মিয়ার ছেলে বেল্লাল এবং আবু বকরের ছেলে কামরুলের নের্তৃত্বে দেওভোগ গ্রামের ফিরোজ মোল্লার বখাটে ছেলে খায়রুল মোল্লা(২২), আমজাদ মোল্লার ছেলে আকরাম মোল্লা(১৯), রাজ্জাক মোল্লার ছেলে মমিন মোল্লা(২০) ও রফিক মিয়ার ছেলে লিটন ওরফে মিন্টু(১৯)সহ ৭-৮ মিলে আজিজুল ও রাসেলের উপর লাঠিসোঠা দিয়ে হামলা ও ধারালো অস্্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে আজিজুলের বাড়ির লোকজন ও আশপাশের প্রতিবেশীরা ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মির্জাপুর কুমদিনী হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসকদের পরামর্শে পরে তাকে ঢাকার সিএমএস-এ নেওয়ার পথে চন্দ্রা এলাকায় সে মারা যায়। পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। হত্যার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে বেল্লাল, খায়রুল, আকরাম, মমিন ও মিন্টুকে আটক করেছে। তবে ঘটনার মুল নায়ক কামরুলকে পুলিশ এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি। আজিজুলের পরিবার হত্যাকারীদের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির দাবী জানিয়েছে।
এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ এ কে এম মিজানুল হক মিজান ও ওসি(তদন্ত) মো. মোশারফ হোসেন বলেন, নিহত সেনা সদস্য আজিজুলের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৫ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত মামলা হয়নি। মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *