শনিবার, জুন ২৩, ২০১৮, ৮:৪৬:০০ পূর্বাহ্ণ
Home » অন্যান্য » মির্জাপুরে নির্বাচন ও ঘুষের টাকা নিয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের উপর বিআরডিবির ভাইস চেয়ারম্যানের হামলা অফিস ভাংচুর

মির্জাপুরে নির্বাচন ও ঘুষের টাকা নিয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের উপর বিআরডিবির ভাইস চেয়ারম্যানের হামলা অফিস ভাংচুর

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, স্টাফ রিপোর্টারঃ-
বিআরডিবির নির্বাচন এবং চাকুরি দেওয়ার নামে ঘুষের টাকা নিয়ে উপজেলা আওযামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বিআরডিরি চেয়ারম্যান মীর শরীফ মাহমুদ(৫৬) উপর হামলা করেছে উপজেলা বিআরডিবির ভাইস চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ জাতীয় পল্লী উন্নয়ন ফেডারেশনের ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল(৪৩)।উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের উপর হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিকলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।আজ সোমবার টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলা সদরের বিআরডিবি অফিসে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।হামলার পর থেকে ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল পলাতক।তিনি পলাতক থাকলেও আওয়ামীলীগ ও এর সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জলের গ্রামের বাড়ি গোড়াই লালবাড়িতে দফায় দফায় হামলা চালিয়েছে এবং তার পরিবারকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে বলে রাতে টেলিফোনে অভিযোগ করেছেন।
জানা গেছে, আগামী ১২ মে মির্জাপুর উপজেলা বিআরডিবি অফিসে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন হওয়ার কথা। চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলাম জহির ও বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল প্রার্থী বলে গুঞ্জন শুনা যাচ্ছে।অভিযোগ উঠে নির্বাচনের চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী সঠিক না হলেও খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল নিয়ম ভঙ্গ করে বিভিন্ন এলাকায় প্রচারনা চালাতে থাকেন।এ নিয়ে বিআরডিবির সদস্যদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ দেখা দেয়।
এদিকে বিআরডিবির ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল চাকুরী দেওয়ার নাম করে বিভিন্ন লোকজনের কাছ থেকে ১৫-২০ লাখ টাকা, সমিতির টাকা এবং বিআরডিবির অফিসের নতুন ভবন ও মার্কেট নির্মানের কথা বিভিন্ন জনের কাছ থেকে বিপুল অংকের টাকা হাতিয়ে নেয় বলে অভিযোগ উঠে।আজ সোমবার ক্ষতিগ্রস্থ্য বেশ কয়েকজন চাকুরি প্রার্থী ও তাদের স্বজনরা বিআরডিবি অফিসে এসে বিপ্লবের কাছে টাকা ফেরত চাইতে এলে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।অফিসে বসা বিআরডির চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ ঘটনা জানতে খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জলকে প্রশ্ন করলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে সাধারণ সম্পাদকের উপর হামলা চালায় এবং অফিসের চেয়ার-টেবিল ভাংচুর করে পালিয়ে যায়।ঘটনার পর অফিস পাড়ায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে।
এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও বিআরডিবির চেয়ারম্যান মীর শরীফ মাহমুদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিআরডিবির ভাইস চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ জাতীয় পল্লী উন্নয়ন ফেডারেশনের ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল একজন প্রতারক।তিনি ভাইস চেয়ারম্যানের নাম ভাঙ্গিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে এলাকার লোকজনদের বিভিন্ন অধিদপ্তরে চাকুরি দেওয়ার নামে ১৫-২০ লাখ টাকা, ভুমি অফিসে খাজনা খারিজ, বিআরডিবি অফিসের বিভিন্ন সমিতির ও অফিসের নতুন ভবন এবং মার্কেট নির্মানের জন্য বিপুল অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।আজ সোমবার ক্ষতিগ্রস্থ্য লোকজন অফিসে টাকা ফেরত চাইতে এলে তাদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।আমি ঘটনা জানতে চাইলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে আমার উপর হামলা চালায় এবং অফিস ভাংচুর করে।
এ ব্যাপারে খন্দকার বিপ্লব মাহমুদি উজ্জলের সঙ্গে বিস্তারিত জানার জন্য যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সামনে বিআরডিবি নির্বাচন।আমি যাতে প্রার্থী হতে না পারি সে জন্য বিভিন্ন অফিযোগ দিয়ে আমাকে নির্বাচন থেকে দুরে রাখার জন্য গভীর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ ও এর অংগ সংগঠনের লোকজন আমার বাড়িতে দফায় দফায় হামলা চালিয়ে আমার পরিবারকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।নিরাপত্তার অভাবে তিনি মামলা করতে পারছে না বলে অভিযোগ করেন।
এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ কে এম মিজানুল হক মিজান বলেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *