সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৮, ৭:০০:১৮ পূর্বাহ্ণ
Home » অন্যান্য » মির্জাপুরে দুই যুগেও আট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়নি শিক্ষক-কর্মচারীর মানবেতর জীবন

মির্জাপুরে দুই যুগেও আট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়নি শিক্ষক-কর্মচারীর মানবেতর জীবন

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল,স্টাফ রিপোর্টারঃ-
টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলায় আট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দুই যুগেও এমপিও ভুক্ত হয়নি।নন এমপিওভুক্ত এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষক কর্মচারী বেতন ভাতা না পেয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।আজ শুক্রবার নন এমপিওভুক্ত এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারীদের সঙ্গে কথা বলে তাদের মানবেতর জীবন যাপনের করুন চিত্র জানা গেছে।
মির্জাপুর উপজেলার নন এমপিওভুক্ত আট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হচ্ছে,৭ নং ওয়ার্শি ইউনিয়নের নতুন কহেলা কলেজ(প্রতিষ্ঠাকাল ২০০২), ১০ নং গোড়াই ইউনিয়নের রাজাবাড়ি কলেজ(প্রতিষ্ঠাকাল ২০০৪), ৮ নং ভাদগ্রাম ইউনিয়নের বুড়িহাটি নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়(প্রতিষ্ঠাকাল ১৯৯৮), ১২ নং তরফপুর ইউনিয়নের টাকিয়া কদমা নিম্ম মাধ্যমিক বিদ্যালয়(প্রতিষ্ঠাকাল ১৯৯৩), ১ নং মহেড়া ইউনিয়নের ভাতকুড়া গ্রাম বাংলা কৃষি টেকনিক্যাল কলেজ(প্রতিষ্ঠাকাল ২০০৫), ২নং জামুর্কি ইউনিয়নের সাটিয়াচড়া ছাফদার আলী কলেজ(প্রতিষ্ঠাকাল ২০০৭), একই ইউনিয়নের ড. আয়েশা রাজিয়া খোন্দকার স্কুল এন্ড কলেজ(প্রতিষ্ঠাকাল ২০১০) এবং পৌর সভার পুষ্টকামুরী এলাকায় আলহাজ¦ শফিউদ্দিন মিঞা এন্ড একাব্বর হোসেন টেকনিক্যাল কলেজ(প্রতিষ্ঠাকাল-২০১০)।
রাজাবাড়ি কলেজের অধ্যক্ষ মো.মফিজুর রহমান স্বপন এবং আলহাজ¦ শফিউদ্দিন মিঞা এন্ড একাব্বর হোসেন টেকনিক্যাল কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. মাসুদুর রহমান মাসুদ জানান, এলাকায় শিক্ষা বিস্তারের লক্ষে এবং অবহেলিত পরিবারের সন্তানদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করার লক্ষ নিয়ে এলাকার শিক্ষানুরাগী বেশ কয়েকজন ব্যক্তি ও সমাজ সেবক মিলে মির্জাপুর উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল এবং উপজেলা সদরের আশপাশে এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন।এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার মান অত্যান্ত সন্তোষ জনক এবং জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল অত্যান্ত ভাল।প্রাতিষ্ঠানিক ও শিক্ষা বোর্ডের সকল যোগ্যতা থাকার পরও নানা জটিলতার কারনে মির্জাপুরে এই আট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত না হওয়ায় শিক্ষক কর্মচারীদের মানবেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে।অনেক শিক্ষক কর্মচারীর সরকারী চাকুরীর বয়স সীমা শেষ হয়ে যাওয়ায় তারা অন্য কোন কর্মক্ষেত্রেও যেতে পারছে না বলে জানিয়েছেন।শিক্ষক কর্মচারী ও তাদের পরিবারের দিকে তাকিয়ে হলেও এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার জন্য জোর দাবী এই দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষগন জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল-৭(মির্জাপুর) আসনের মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য ও সড়ক পরিবহন এবং সেতু মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ মো. একাব্বর হোসেন বলেন, এলাকার শিক্ষা বিস্তারের জন্য এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে।এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারীরা বিনা বেতনে ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষা দিয়ে যাচ্ছে।শিক্ষক কর্মচারীদের এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের কথা চিন্তা করে হলেও এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার জন্য তিনি মাননীয় প্রধান মন্ত্রী, অর্থ মন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রী ও শিক্ষা সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *