রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০১৯, ৬:৪২:১১ অপরাহ্ণ
Home » অন্যান্য » মির্জাপুরে আদাবাড়ি গহের আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ

মির্জাপুরে আদাবাড়ি গহের আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, স্টাফ রিপোর্টারঃ-
বিদ্যালয়ে পরিত্যক্ত একটি কক্ষে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রীকে শ্লীলনতাহানীসহ ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। একটি গ্রুপ ছাত্রী ধর্ষনের এই ঘটনা বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ায় এলাকায় তীব্র উত্তেজনা এবং বিদ্যালয়ে অচলাবস্থা বিরাজ করছে। টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ১ নং মহেড়া ইউনিয়নের আদাবাড়ি গহের আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে চাঞ্চল্যকর এ অমানিবক ঘটনাটি ঘটেছে। আজ শনিবার বিদ্যালয়ে গিয়ে ছাত্রী ধর্ষনের এই ঘটনার পক্ষে বিপক্ষে তীব্র উত্তেজনা দেখা গেছে।
বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী ও এলাকার লোকজন অভিযোগ করেন, আদাবাড়ি গহের আরী উচ্চ বিদ্যালয়ে দীর্ঘ দিন ধরে নানা সমস্যা দেখা দিয়েছে। রয়েছে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতি। গত ২৭ মার্চ দুপুরে বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত একটি ভবনে এ ঘটনা ঘটে। শিক্ষার্থীরা জানায়, আদাবাড়ি গ্রামের জৈনেক এক ব্যক্তির কন্যা ও ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী(নাম প্রকাশ করা হলো না) একই বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর কয়েকজন ছাত্র মিলে টিফিনের সময় একটি কক্ষে ঢেকে নিয়ে শ্লীলতাহানী ও ধর্ষন করে। এই ঘটনা আশপাশের লোকজন ও শিক্ষার্থীরা দেখে বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র রাকিব, ফয়সাল, মৃদুল, মিরাজুল, আকাশসহ ৭-৮ জনের নাম উল্লেখ করে ধর্ষনের এই ঘটনাটি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। এই ঘটনা নিয়ে গত কয়েক দিন ধরে বিদ্যালয় ও আশপাশের গ্রামে এর পক্ষে বিপক্ষে তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে। এই ঘটনার পর বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়া ও অবচলাবস্থা বিরাজ করছে। অপর দিকে এই ঘটনার পর লোক লজ্জার ভয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ঐ ছাত্রী বিদ্যালয়ে আসা বন্ধ করে দিয়েছে।
আজ শনিবার ঘটনার বিস্তারিত জানতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও ঘটনার সঙ্গে জড়িত রাকিব, ফয়সাল, মিরাজুল, মৃদুল ও আকাশের সঙ্গে কথা হলে তারা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ঐ ছাত্রীকে শ্লীলতাহানী ও ধর্ষনের মত কোন ঘটনা ঘটেনি। গত ২৭ মার্চ তার সঙ্গে বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত একটি কক্ষে টিফিনের সময় তার সঙ্গে কথা হয়েছে। এই ঘটনাকে ধর্ষনের ঘটনা উল্লেখ করে এলাকার একটি কুচক্রী মহল ও কিছু বখাটে ধর্ষনের ঘটনা উল্লেখ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করেছে। এই নিয়ে বিদ্যালয় ও এলাকায় বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। তারা এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী জানিয়েছে।
এদিকে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ঐ ছাত্রী ও তার সঙ্গে বিস্তারিত জানার জন্য যোগযোগ করা হলে তারা লোক লজ্জার ভয়ে ঘটনা ও অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিদ্যালয়ের শিক্ষখ ও ম্যানেজিং কমিটির দুই গ্রুপের মধ্যে দ্বন্ধ এবং ম্যানেজিং কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে একটি গ্রুপ বিদ্যালয়ের অচলাবস্থা সৃষ্টির জন্য মিথ্যা একটি অপ প্রচার চালিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করে দিয়েছে। তারা এই ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত তাদের বিচার দাবী জানিয়েছেন। ঐ ছাত্রী লোক লজ্জার ভয়ে বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে বলে জানিয়েছে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মশিউর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ, ম্যানেজিং কমিটি গঠনসহ বিভিন্ন সমস্যা রয়েছে। এই সমস্যাকে পুঁজি করে একটি পক্ষ ছাত্রীকে ধর্ষনের মত ঘটনা সাজিয়ে অপ প্রচার করে যাচ্ছে। ঘটনার পর থেকে ঐ ছাত্রী বিদ্যালয়ে আসা বন্ধ করে দিয়েছে। তিনি সমস্যা সমাধানের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চেয়েছেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. হারুন অর রশিদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আদাবাড়ি গহের আলী বিদ্যালয়ের সমস্যা দীর্ঘ দিনের। বিদ্যালয়ের ভিতরে এ ধরনের ঘটনা দুঃখ জনক। এখন পর্যন্ত কোন পক্ষ বিচারের জন্য অভিযোগ দেয়নি। তবে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *