রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০১৯, ৬:৫০:১৩ অপরাহ্ণ
Home » অন্যান্য » মির্জাপুরে আওয়ামীলগের তৃনমুল নেতাকর্মীর সমর্থিত মন্টু-আজাহার-শিফা প্যানেল বিপুল ভোটে বিজয়ের পথে

মির্জাপুরে আওয়ামীলগের তৃনমুল নেতাকর্মীর সমর্থিত মন্টু-আজাহার-শিফা প্যানেল বিপুল ভোটে বিজয়ের পথে

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, স্টাফ রিপোর্টারঃ-
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের তৃনমুল নেতাকর্মীদের ভোটে চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যান মন্টু-আজাহার-শিফা এই তিন প্রার্থীর প্যানেল বিপুল ভোটে বিজয় হতে চলেছে বলে সাধারন ভোটারগন জানিয়েছেন। আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগ ও শ্রমিকলীগসহ দলীয় নেতাকর্মীরা শেষ মুহর্তে এসে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আওয়ামীলীগের প্যানেলের তিন প্রার্থীকে বিপুল ভোটে বিজয় করার জন্য মাঠে নেমেছেন। দিন রাত চষে বেড়াচ্ছেন ভোটারদের বাড়ি বাড়ি। প্রার্থীদের চলছে ব্যাপক গনসংযোগ। আজ রবিবার উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ও ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে এমন চিত্রই পাওয়া গেছে। নির্বাচনে ১০ প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতায় অংশ নিলেও আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্যানেল প্রচার প্রচারনায় অনেক এগিয়ে রয়েছে। চেয়ারম্যান পদে মীর এনায়েত হোসেন মন্টু, ভাইস চেয়ারম্যান পদে মো. আজাহারুল ইসলাম সিকদার আজাহার ও সংরক্ষিত নারী আসনে মীর্জা শামীমা আক্তার শিফা প্রতিটি এলাকায় এক মঞ্চে প্রচারনা, কর্মী সভা ও পথসভা করে ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছেন।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্র জানায়, চেয়ারম্যান পদে চার জন, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে তিন জন এবং সংরক্ষিত নারী আসন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিন জনসহ মোট ১০ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক ও বিআরডিবির চেয়ারম্যান মো. জহিরুল হক জহির জানান, আওয়ামীলীগের তৃনমুল নেতাকর্মীদের ভোটে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান পদে মীর এনায়েত হোসেন মন্টু, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে মো. আজাহারুল ইসলাম সিকদার আজাহার এবং সংরক্ষিত নারী আসনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মীর্জা শামীমা আক্তার শিফা দলীয় প্রার্থী হয়েছেন। একটি পৌরসভা ও ১৪ ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে দলয়ি প্যানেলকে বিজয়ী করার জন্য কাজ করছেন। তৃনমুল নেতাকর্মীদের ভোটে পরাজিত এবং দলীয় নির্দেশ অমান্য করে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে সাবেক জিএস সেলিম সিকদার ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বেগম সালমা সালাম উর্মি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। দলীয় নেতাকর্মী ছাড়া নির্বাচনে তারা তেমন সুবিধা করতে পারছেন না বলে ভোটারগন জানিয়েছেন। চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও ৭ বারের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর এনায়েত হোসেন মন্টু(নৌকা), ভাইস চেয়ারম্যান পদে পুরুষ উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মো. আজাহারুল ইসলাম সিকদার আজাহার(তালা) এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা লীগের নেত্রী মীর্জা শামীমা আক্তার শিফা(কলসী)। এই তিন জনই আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্যানেল।
চেয়ারম্যান পদে টাঙ্গাইল জেলা ইটভাটা মালিক সমিতির সভাপতি স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন জননেতা মো. ফিরোজ হায়দার খান(মোটর সাইকেল), ন্যাশনাল পিপুলস পার্টির মো. লাল মিয়া(আম মার্কা) এবং প্রগতিশীল বাম দল বাংলাদেশ রামকৃষ্ণ পার্টির সভাপতি শ্রী মতি রুপা রায় চৌধুরী (আনারস)। ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক ও সাবেক জিএস সেলিম সিকদার(উড়োজাহাজ) এবং সংরক্ষিত নারী আসনে প্রার্থী হয়েছেন জেলা মহিলা লীগের নেত্রী বেগম সালমা সালাম উর্মি( হাঁস মার্কা)।
এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ বলেন, আওয়ামীলীগ একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দল। দলের তৃনমুল নেতাকর্মীর মতমত ও ভোট নিয়ে মীর এনায়েত হোসেন মন্টুকে চেয়ারম্যান এবং ভাইস চেয়ারম্যান পদে মো. আজাহারুল ইসলাম সিকতার আজাহার ও সংরক্ষিত নারী আসনে মীর্জা শামীমা আক্তার শিফাকে মনোয়ন দিয়ে প্যানেল দেওয়া হয়েছে। তৃনমুলের নেতাকর্মীদের নির্দেশ অমান্য করে যারা নির্বাচন করছেন তারা সুবিধা করতে পারছেন না। নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ ও সু-সংগঠিত হয়ে দলীয় প্যানেলের প্রাথৃীদের বিজয় করার জন্য কাজ করছেন। বিজয় নিশ্চিত হবেই।
অপর দিকে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. ফিরোজ হায়দার খান বলেন, এলাকায় তার অবস্থান খুবই ভাল। ভোটারগন তাকে ভোট দেওয়ার জন্য অধির আগ্রহ করছেন। শান্তিপুর্ন ভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হলে তার বিজয় সুনিশ্চিত বলে তিনি আশা করছেন।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক মো. আবুল কাশেম(টিউবওয়েল), টাঙ্গাইল জেলা ও মির্জাপুর উপজেলা মহিলা দলের সভা নেত্রী খালেদা সিদ্দিকী স্বপ্না(ফুটবল) প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। ৩১ মার্চ ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও শান্তিপুর্ন ভাবে গ্রহনের লক্ষে উপজেলায় দুই হাজার ৬০০শ জন ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা নিয়োগ দিয়েছেন। ঢাকা নির্বাচনি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট এর আয়োজনে এবং মির্জাপুর উপজেলা নির্বাচন অফিসের সহযোগিতায় ভোট গ্রহণ কর্মকর্তাদের দুই দিন ব্যাপি এ প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ্য
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার এ এম শামসুজ্জামান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক ও অফিসার ইনচার্জ এ কে এম মিজানুল হক মিজান বলেন, চেয়ারম্যান পদে চার জন, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ পদে তিন জন এবং সংরিক্ষত নারী আসন ভাইস চেয়ারম্যান মহিলা পদে তিন জনসহ মোট ১০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। নির্বাচন নিরপেক্ষ, সুষ্ঠু, শান্তিপুর্ন ও গ্রহন যোগ্য করতে নির্বাচন কমিশন ও স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রকার প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *