সোমবার, এপ্রিল ২৩, ২০১৮, ৩:৩৮:৪৮ পূর্বাহ্ণ
Home » অন্যান্য » মির্জাপুরে অসহায় এক পরিবারের জমি জোরপুর্বক দখলের অভিযোগ ভুমি দস্যুদের বিরুদ্ধে

মির্জাপুরে অসহায় এক পরিবারের জমি জোরপুর্বক দখলের অভিযোগ ভুমি দস্যুদের বিরুদ্ধে

মীর আনোয়ার হোসেন টুটুল, স্টাফ রিপোর্টারঃÑ
জমির বৈধ কাগজপত্র ও দলিল থাকার পরও অসহায় ও নিরীহ এক পরিবারের ১৭ শতাংশ জমি একদল ভুমি দস্যু জোর পুর্বক জবর দখল করে নিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।ভুমি দস্যু এই বাহিনী নিরীহ ঐ পরিবারের রোজগারের একমাত্র একটি দোকান ভেঙ্গে ফেলে ও গাছপালা কেটে নিয়ে রাস্তায় বাঁশের বেড়া নির্মান করে দিয়েছে।ঘটনার পর অসহায় পরিবারটি ঐ বাহিনীর হাতে পুরোপুরি জিম্মি বলে অভিযোগ করেছে।ন্যায় বিচারের জন্য দ্ধারে দ্ধারে ঘুরছে নিরীহ পরিবারটি।টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ৭ নং ওয়ার্শি ইউনিয়নের হালুয়াপাড়া গ্রামে এ জমি জবর দখলের ঘটনাটি ঘটেছে।আজ মঙ্গলবার ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে।
জানা গেছে, হালুয়াপাড়া মৌজার সিএস খতিয়ান নং-৩৯, এস এস খতিয়ান নং-২৩, বুজরত খতিয়ান নং-২৭৪, ডিপি খতিয়ান নং-৩৩৩, সাবেক দাগ নং-৪১২, হাল দাগ নং-৪২২ এর ২৮ শতাংশ জমির মদ্যে ১৭ শতাংশ জমির মালিক আব্দুল আজিজ মিয়ার স্ত্রী নুরজাহান বেগম।২০০৭ সালে নুরজাহান বেগমের পিতা মো. নাজিম উদ্দিন তাকে দলিল করে দেন।দলিল করে দেওয়ার পুর্ব থেকেই এবং দীর্ঘ দিন ধরে নুরজাহান বেগম, তার স্বামী-আব্দুল আজিজ ও জাহাঙ্গীর আলম গংরা উক্ত জমি ভোগ দখল করে আসছেন।নুরজাহান বেগম , আব্দুল আজিজ ও জাহাঙ্গীর আলেমের প্রতিবেশী মোহাম্মদল আলী ওরফে শেরে বাংলা(৪৮), ইব্রাহিম মিয়া(৫৭), শামসুজ্জামান(৫৯), লোকমান হোসেন(৫৫), আকাশ মিয়া(১৯), আফাজ উদ্দিন(৫৮), শওকত আলী(৫০) গংরা এই জমি তাদের দাবী করে দখল করে নেওয়ার চেষ্টা করে।জমি দখলেল উদ্যেশ্যে সম্প্রতি এই চক্রটি নুরজাহান বেগম, তার স্বামী আব্দুল আজিজ ও জাহাঙ্গীর আলমের রোজি রোজগারের একমাত্র দোকান ঘরটি ভেঙ্গে ফেলে মালামাল ও টাকা পসা লুটপাট করে নিয়ে যায় এবং গাছপালা কেটে নিয়ে রাস্তায় বাঁশের বেড়া দিয়ে আটকিয়ে দেয়।ভুমি দস্যুদের হুমকি ওচাপের মুখে নিরীহ পরিবারটি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বলে অভিযোগ করে।এলাকার লোকজনদের ঘটনাটি জানালেও তারা ন্যায় বিচার না পাওয়ায় জাহাঙ্গীর আলম বাদি হয়ে টাঙ্গাইল জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন।মামলার পর আদালতের বিচারক ঘটনাটির সঠিক তদন্ত দেওয়ার নির্দেশ দেন।
মামলার বাদী জাহাঙ্গীর আলম, তার পিতা আব্দুল আজিজ ও মাতা নুরজাহান বেগম অভিযোগ করেন, মির্জাপুর থানার এস আই মিজানুর রহমার মিজান বিবাদী পক্ষের কাছ থেকে মোটা অংকের উৎকুচ নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে উল্টো রিপোর্ট দিয়েছে।নিরীহ এই পরিবারটি ভুমি দস্যু মোহাম্মদ ্আলী শেরে বাংলা গংদের কবল থেকে রক্ষা ও ন্যায় বিারের জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে মোহাম্মদ আলী ওরফে শেরে বাংলা গংদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, বাদী পক্ষের সঙ্গে জমি নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছে।স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মাতাব্বরগন দোকান ভেঙ্গে দিয়েছে বলে তারা দাবী করেন।
এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার এস আই মিজানুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিবাদী পক্ষের অভিযোগর প্রেক্ষিতে স্থানীয় চেয়ারম্যান দোকান পাট ভেঙ্গে দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *