শুক্রবার, অক্টোবর ১৯, ২০১৮, ৬:৪০:৫৭ পূর্বাহ্ণ
Home » অন্যান্য » বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার ১ হাজার ১ শ ৬৯ কোটি ৭৪ লাখ টাকার ১১লাখ৬১ হাজার ২ শ ৮০ বেল পাট উৎপাদন

বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার ১ হাজার ১ শ ৬৯ কোটি ৭৪ লাখ টাকার ১১লাখ৬১ হাজার ২ শ ৮০ বেল পাট উৎপাদন

 

কুষ্টিয়া থেকে রিয়াজুল ইসলাম সেতু ঃ বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশ পাটের জন্য বিখ্যাত পাটের আর এক নাম সোনালী আঁশ বলা হয়। সরকার প্রধান প্লাষ্টিক বস্তা পন্য বহন নিষিদ্ধ করায় বর্তমানে পাট চাষীরা পাটরে আবাদের ঝুকে পড়েছে। দেশের মধ্যে ফলন ও মানের দিক দিয়ে বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলা সর্বচ্চ স্থান অধিকার করেছে । বছরের শুরুতেই পানির অভাবে পাট চাষীরা বিপাকের মধ্যে থাকলে ও বর্তমানে পাটের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে । বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার অধিকাংশ মানুষ কৃষির উপর নির্ভরশীল । এরমধ্যে পাট ও পিয়াজ অন্যতম ফসল । পূর্বে এই এলাকার কৃষকরা বৃষ্টির পর পাটের বীজ বপন করতো । বীজ বপন করার ১০/১৫ দিনের মধ্যেই আবার ঘনঘন বৃষ্টি হতো । কোন প্রকার সেচের ব্যবস্থা ছিলো না । রৌদ-বৃষ্টি ও আবহাওয়া পাটের অনুকুলে থাকার কারণে পাটের উৎপাদন ভার হতো । এবছরে এই বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলার ৯৫ হাজার ৯ শ ৭০ হেক্টর জমিতে পাটের আবাদ করা হয়েছে এবছরে বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলায় পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করে ৯৫ হাজার ৭ শ ৩০ হেক্টের জমিতে পাটরে আবাদ করা হয়েছে । বর্তমানে পাটের অবস্থান খুবই সন্তোষজনক। । বর্তমানে বৃুহত্তর জেলার ১৩ টি উপজেলা বিভিন্ন স্থানে পাট কর্তন পানিতে জাগ দিয়ে সহ সোনালী আঁশ সংগ্রহ চলছে । উল্লেখ্য সাড়ে ৭ বিঘায় জমির সমান ১ হেক্টর , ৫ মন সমান এক বেল প্রতি মন পাটের মূল্য ২ হাজার টাকা । ১ বেল পাটের মূল্য প্রায় ১০ হাজার টাকা বৃহত্তর কুষ্টিয়া জেলায় ৯৫ হাজার ৭শ ৩০ হেক্টের জমিতে পাট চাষ করা হয়েছে ফলে পাট উৎপাদন হবে ১১লাখ ৬১ হাজার ২ শ ৮০ বেল । এর মধ্যে কুষ্টিয়া জেলায় ঃ পাট আবাদ করা হয়েছে ৪২ হাজার ৩ শ ৮০ হেক্টের জমিতে, ৪শ ৬৬ কোটি ১৮ লাখ টাকায় পাট উৎপাদন হবে ৪ লাখ ৬৬ হাজার ১ শ ৮০ বেল । চুয়াঙ্গায়া জেলায় ঃ পাট আবাদ করা হয়েছে ২৬ হাজার ১৪০ হেক্টের জমিতে ৩ শ ৮৯ কোটি ৪০ লাখ টাকায় ,পাট উৎপাদন হবে ৩ লাখ ১৪ হাজার ১৬০ বেল ও মেহেরপুর জেলায় ঃ পাট আবাদ ২৭ হাজার ২১০ হেক্টের জমিতে, ৩ শ ১৪ কোটি ১৬ লাখ টাকায় পাট উৎপাদন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ৩ লাখ ৮০ হাজার ৯৪০ বেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *