রবিবার, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৮, ১২:৩৬:৫৩ পূর্বাহ্ণ
Home » শিক্ষা » বাকৃবিতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে কৃষিবিদ দিবস পালিত

বাকৃবিতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে কৃষিবিদ দিবস পালিত

বাকৃবি প্রতিনিধি:

বর্ণাঢ্য আয়োজনে আনন্দ র‌্যালি, আলোচনা সভা ও পিঠা উৎসবের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) কৃষিবিদ দিবস পালিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু স্মৃতি চত্বরে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও বেলুন উড়িয়ে দিবসটির উদ্বোধন করেন সংসদ সদস্য কৃষিবিদ আবদুল মান্নান।

 

র‌্যালি পরবর্তী আলোচনা সভায় কেআইবি বাকৃবি শাখার সভাপতি কৃষিবিদ অধ্যাপক ড. মো. আখতার হোসেন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য কৃষিবিদ আবদুল মান্নান।

 

অনুষ্ঠানে প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আলী আকবর। বিশেষ অতিথি হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য, ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা, শিক্ষক সমিতির সভাপতি, বাকৃবি অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের নির্বাহী সভাপতি উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাকৃবি শাখার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. সাজ্জাদ হোসেন।

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভার মূল প্রবন্ধে কেআইবির যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক ড. এ.কে. এম. জাকির হোসেন বলেন, প্রতিষ্ঠার পর বাকৃবি থেকে এখন পর্যন্ত ৪২ হাজার ১৩৭ জন গ্রাজুয়েট বের হয়েছেন এবং ১০ হাজার ১৮৫ জন কৃষককে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।

 

এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৩২ টি প্রকল্প চলমান রয়েছে এবং ১৪১ টি প্রযুক্তি উদ্ভাবিত হয়েছে। বর্তমানে দেশের মোট জিডিপিতে কৃষির অবদান ১৪.২২%। এসবই সম্ভব হয়েছে কৃষিবিদদের নিরলস পরিশ্রমের জন্য।

 

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ ছিল একটি তলা বিহীন ঝুড়ির মতো। দেশের ওই অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য কৃষিবিদদের গুরুত্ব বুঝতে পেরেছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাই ১৯৭৩ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের চত্বরে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু কৃষিবিদদের প্রথম শ্রেণির মর্যাদা প্রদান করেন।

 

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ২০১০ সালের ২৭ নভেম্বর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনের (কেআইবি) এক সাধারণ সভায় ১৩ ফেব্রুয়ারিকে কৃষিবিদ দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। তাই ২০১১ সাল থেকে প্রতিবছরই ওই দিবসটি পালিত হয়ে আসছে।

 

যারা কৃষি নিয়ে কাজ করে তারাই সভ্যতার নির্মাতা। প্রাচীন মর্যাদাপূর্ণ পেশা কৃষি। দেশের উন্নয়ন করতে হলে কৃষিতে উন্নয়ন করতে হবে বঙ্গবন্ধু সেটা উপলব্ধি করেই কৃষিবিদদের ১ম শ্রেণির পদমর্যাদা দিয়েছিলেন, কৃষিবিদরা তার মর্যাদা রেখেছেন। দেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *