রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০১৯, ৯:০০:৪৪ অপরাহ্ণ
Home » নারী ও শিশু » ফেলে যাওয়া শিশুকে বুকের দুধ খাইয়ে আলোচনায় নারী কনস্টেবল

ফেলে যাওয়া শিশুকে বুকের দুধ খাইয়ে আলোচনায় নারী কনস্টেবল

অনলাইন ডেস্ক
সম্প্রতি দুই মাস বয়সী ফেলে যাওয়া এক শিশুকে বুকের দুধ খাইয়ে সবার নজর কেড়েছেন প্রিয়াঙ্কা নামের এক নারী কনস্টেবল। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের হায়দ্রাবাদের আফজলগঞ্জ থানা এলাকায় । খুব দ্রুত সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য হায়দ্রাবাদ পুলিশ কমিশনার আনজানি কুমারের কাছে প্রশংসিত হয়েছেন ওই নারীর স্বামী রবিন্দমও । স্ত্রীর মতো তিনিও পেশায় একজন পুলিশ কনস্টেবল।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, হায়দ্রাবাদের ওসমানিয়া জেনারেল হাসপাতালের বাইরে থেকে ওই শিশুকে উদ্ধার করেছিলেন মোহাম্মদ ইরফান নামের এক ব্যক্তি। ইরফান পুলিশকে জানায়, শনিবার রাতে তিনি হাসপাতালের বাইরে অবস্থান করছিলেন। এমন সময় একজন নারী ওই শিশুটিকে তার কাছে রেখে কয়েক মিনিটের মধ্যে ফিরে আসার প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু তারপর সেই নারী আর ফিরে আসেননি। অনেকক্ষন অপেক্ষার পর ইরফান বাধ্য হয়ে শিশুটিকে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসেন। তারপর শিশুটিকে প্যাকেটজাত দুধ খাওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু কোনও ভাবেই শিশুটিকে ওই দুধ খাওয়ানো যাচ্ছিল না। সে অনবরত কেঁদেই চলছিল। অবশেষে রাতেই ইরফান সেই শিশুটিকে আফজলগঞ্জ থানায় নিয়ে আসেন।

ঠিক সেই মুহূর্তে আফজলগঞ্জ থানায় কর্মরত ছিলেন প্রিয়াঙ্কার স্বামী রবিন্দম। শিশুটিকে কাঁদতে দেখে বেগমপট থানায় কর্মরত স্ত্রী প্রিয়াঙ্কাকে ফোন দিয়ে সব জানান তিনি। সব শুনে প্রিয়াঙ্কা আর দেরি করেননি। সঙ্গে সঙ্গেই একটি ক্যাব বুক করে আফজলগঞ্জ থানায় চলে আসেন। প্রিয়াঙ্কার নিজেরও ছোট সন্তান রয়েছে। তাই শিশুটিকে দেখে আর স্থির থাকতে পারেননি। ক্রন্দনরত শিশুটিকে তাড়াতাড়ি নিজের বুকের দুধ খাওয়ান তিনি।শিশুটির কান্নাও তাৎক্ষণিকভাবে থেমে যায়।

শিশুটি আপাতত পেতলাবুর্জে সরকারি প্রসূতি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এরই মধ্যে অবশ্য শিশুটির মাকে খুঁজে পেয়েছে আফজালগঞ্জ পুলিশ। শাবানা বেগম নামের ওই নারী রাস্তায় ফেলানো জিনিসপত্র কুড়িয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। পুলিশ জানায়, ঘটনার দিন মদ্যপ অবস্থায় তিনি তার সন্তানকে একজন অপরিচিত লোকের কাছে কয়েক মিনিটের জন্য রেখে যান। কিন্তু পরে তিনি আর সেই জায়গার কথা মনে করতে পারছিলেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *