সোমবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৮, ১২:১৬:০৬ অপরাহ্ণ
Home » অন্যান্য » ষড়যন্ত্রের রাজনীতি এবং বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ড এক সেমিনার অনুষ্ঠিত

ষড়যন্ত্রের রাজনীতি এবং বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ড এক সেমিনার অনুষ্ঠিত

আপন বাবু,ঢাকা প্রতিনিধি: ১৯৭৫ সালে১৫আগস্ট রাষ্ট্রপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করে খন্দকার মোশতাক আহমেদ নেতৃত্বে একটি খুনি চক্র অসাংবিধানিক পন্থায় ক্ষমতা দখল করেছিলো খুনি চক্র জিয়াউর রহমানকে। ২৪আগস্ট সেনাবাহিনি প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেয়।৩নভেম্বর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খালেদ মোশারফ খুনি চক্রথেকে ক্ষমতা থেকে অপসাধারনের জন্য অভ্যুখান সংঘটিত করেন।

তিনি বলেন এ সময় জিয়াউর রহমানকে সেনাবাহিনি প্রধানের পথ থেকে অপসারন এবং বঙ্গবন্ধুর হত্যাকান্ডের জরিত ফারুক রশিদ ডালিম চক্রকে দেশ থেকে বিতারন করা হয়।খন্দকার মোশারফকেও রাষ্টপতি পদ ছেড়ে দিতে বাধ্য করা হয় এবং প্রধান বিচার পতি আবুসাহাদাত মোহাম্মদ সায়েম এ দাত্বিয় গ্রহন করেন।৬নভেম্বর রাতেই তথা কথিত সিপাহি বিদ্রোহ নামে পরিচিত আরেকটি অভ্যুসংগঠিত হয়।৭নভেম্বর প্রত্যুশেয়ে জিয়াউর রহমান নিজেকে সামরিক ভাবে গনপ্রজাত্নএী বাংলাদেশের চিফ মার্শাল ল আ্যাডমিনেসটেটস্ ও সেনাবাহিনির প্রধান হিসেবে ঘোষনা করেন।

বিচারপতি এবিএম খায়রল হক সংবিধানের পঙ্চম সংশোধনী বাতিল করে এক ঐতিহাসিক রায় প্রদান করেছিলেন। য়াতে সামরিক শাসন জারি করাকে অসাংবিধানিক ঘোষনা করা হয়।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক বলেন বিচারপতি সায়েম ১৯৭৫সালে ৬নভেম্বর থেকে ১৯৭৭সালের ২১এপ্লিল পর্য়ন্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি হিসেবে দাত্বিয় পালন করেন বিচার পতি সায়েম বঙ্গভবনে তার দিন গুলোর গ্রন্থে তার উল্লেখ করেছিলেন আমি ভাবতে পারিনি য়ে নিবার্চনের তিনি নিজেকেই অংশ নেবেন। সেরকম খেএে সেনা প্রধান থাকা অবস্থাতেই এবং সামরিক আইনের অধীনে প্রেসিডেন্ট ও প্রধান সামরিক আইন প্রসারক হিসেবেও অর্থাৎ ক্ষমতাসিন হয়েই তিনি নিবার্চন করবেন এবং সেই নিরবার্চনে নিজে অংশগ্রহন করবেন এমন চিন্তা মাথায় আসে নি।

বঙ্গবন্ধু খুনিরা ফারুক রশিদরা আন্তর্জাতিক গনমাধ্যমে স্পষ্ট করে বলেছিলো জিয়াউর রহমানেই বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের মুল ইন্ধনদাতা।বিশিষ্ট সাংবাদিক মিজানুর রহমান খানের মার্কিন দলিলে মুজিব দত্যাকান্ড অনুসন্ধানী দৃষ্টিতে পাঠ করলে জিয়াউর রহমানের ষড়যন্ত্রর কথা স্পষ্টভাবে বেরিয়ে আসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *