শনিবার, জুলাই ২১, ২০১৮, ৩:৪৯:০৬ পূর্বাহ্ণ
Home » সারাদেশ » বরিশাল » পা দিয়ে লিখে দাখিল পরীক্ষা দিচ্ছে বেলাল

পা দিয়ে লিখে দাখিল পরীক্ষা দিচ্ছে বেলাল

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:

জন্ম থেকেই দুই হাত নেই। শুধুমাত্র পা দিয়ে লিখে দাখিল পরীক্ষা দিচ্ছে শিক্ষার্থী বেলাল হোসেন। আর সে পরীক্ষার খাতায় ডান পায়ের আঙ্গুল দিয়ে লিখছেও দ্রুত। পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের উমেদপুর দাখিল মাদ্রাসার মানবিক বিভাগের মেধাবী শিক্ষার্থী বেলাল পৌর শহরের নেছার উদ্দিন ফাজিল সিনিয়র মাদ্রাসা কেন্দ্রে দাখিল পরীক্ষায় অংশ নেয়।

বেলালের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের উমেদপুর গ্রামে হতদরিদ্র পরিবার বেলালের জন্ম। জন্মগতভাবেই তার দু’টি হাত নেই। নানা রকমের কুসংস্কার ছড়াতে থাকে গ্রামের লোকজন। এসবের কারণে বাবা-মা প্রথমদিকে বেলালকে ঘরের মধ্যে লুকিয়ে রাখতো।

মা হোসনে আরা বেগম ছেলেকে লেখাপড়া শিখিয়ে আত্মনির্ভরশীল করে গড়ে তোলার শপথ নেন। এর পর ঘরে বসে বেলালকে পড়াতে শুরু করে। আর পায়ের আঙ্গুলের মধ্যে চক দিয়ে সিলেটে লেখা শিখানো অভ্যাস তৈরি করে ফেলেন। এভাবেই বেলাল আয়ত্ত করে ফেলে পা দিয়ে লেখার। এর পর বাড়ি থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দুরের উমেদপুর মাদ্রাসায় তাকে ভর্তি করা হয়। শুরু হয় দিনমজুর মো. খলিল আকনের শারীরিক প্রতিবন্ধী সন্তান বেলালের শিক্ষার সংগ্রাম।
উমেদপুর দাখিল মাদ্রাসা সূত্রে জান গেছে, পা দিয়ে লিখে বেলাল ৫ম শ্রেণিতে পিএসসি ও জেডিসি পরীক্ষায় এ প্লাস পেয়েছে। এখন সে দাখিল পরীক্ষা দিচ্ছে।

শারীরিক প্রতিবন্ধী বেলাল জানান, পরীক্ষা ভালই হচ্ছে। পা দিয়ে লেখতে তার কোনো সমস্যা হয় না। তার ইচ্ছা উচ্চশিক্ষা শেষে এক জন আদর্শ শিক্ষক হওয়ার।

বেলালের মা হোসনে আরা জানান, জন্ম থেকেই ওর দুই হাত নেই। পা ও ছিলো বাঁকা। গ্রামের মানুষের অনেক কথা শুনতে হয়েছে। বেলালের বাবা মো. খলিলুর রহমান আকন জানান, সংসারের অভাব অনটনের কারণে বেলালের জন্মের পর ভালোভাবে চিকিৎসা করতে পারিনি।

উমেদপুর দাখিল মাদ্রাসার সুপার মো. হাবিবুর রহমান জানান, বেলাল অত্যন্ত মেধাবী। রোদ, ঝড় বৃষ্টি যাই থাকুক না কেন সে নিয়মিত মাদ্রাসা আসতো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *