শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৮, ১০:৪৪:১০ অপরাহ্ণ
Home » অন্যান্য » ধানে চালে ভরপুর জেলা মোদের দিনাজপুর দিনাজপুরে রেটুন ক্রপ ধান চাষে লাভবান হচ্ছেন চাষিরা

ধানে চালে ভরপুর জেলা মোদের দিনাজপুর দিনাজপুরে রেটুন ক্রপ ধান চাষে লাভবান হচ্ছেন চাষিরা

স্টাফ রিপোর্টার,দিনাজপুর : ধানে চালে ভরপুর জেলা মোদের দিনাজপুর। দিনাজপুরের খানসামায় বেশ কয়েক বছর ধরে ‘রেটুন ক্রপ’ পদ্ধতিতে ধান উৎপাদনে লাভবান হচ্ছেন চাষিরা। উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে এ পদ্ধতিতে ধান উৎপাদন হচ্ছে। চাষিরা ইরি বোরো কাটার পর পড়ে থাকা ধান গাছের নাড়া (ধান গাছের গোড়া, মুড়া) থেকে ‘রেটুন ক্রপ চাষ’ পদ্ধতিতে পুনরায় ধান উৎপাদন করে বাড়তি ফসলের আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন। এতে কৃষকের মনে ভীষণ আনন্দও দেখা যাচ্ছে। গত শনিবার সরজমিনে দেখা গেছে, উপজেলার পাকেরহাট, ছাতিয়ান গড়, আঙ্গারপাড়া, দুবলিয়া, ভেড়ভেড়ী গোবিন্দপুর, গোয়ালডিহি, কাচিনীয়া, আগ্রা, চকরামপুর, বালাডাঙ্গী, জুগীরঘোপা সহ বেশ কিছু গ্রামে চাষিরা চলতি বছরে রেটুন ক্রপ পদ্ধতিতে ধান উৎপাদন করেছেন। এরমধ্যে উপজেলার আঙ্গারপাড়া গ্রামের কৈ পাড়ার কৃষক সন্তোষ চলতি বছর ইরি বোরো মৌসুমে আড়াই বিঘা জমিতে ব্রি ধান-২৮ চাষ করেন। মে মাসের শুরুতে এসব ধান কেটে ঘরে তোলেন। আবহাওয়া জনিত কারণে এ বছর ধানের ফলন অন্যান্য বছরের তুলনায় কম হয়েছে। কিন্তু তিনি জমিতে পড়ে থাকা ধান গাছের নাড়া নষ্ট না করে পুনরায় ধান উৎপাদন করতে যতœ নেন এবং ধান গাছের গোড়া কাঁচা থাকায় দ্রুত নতুন কুশি বের হয়। তবে কোন প্রকার সেচ ছাড়াই ধানের মাঝারি ফলন পেয়েছেন। তিনি ধান পেয়েছেন প্রায় ১২ মণ। এ ছাড়াও ঐ এলাকার অনেকের পড়ে থাকা জমিতে নাড়া যতœ করে ধান পেয়েছেন বেশ কয়েকজন কৃষক। তারা বলেন, আমরা তো আগের এসব ধানের চারা কেটে গরু ছাগলকে খাওয়াতাম। কিন্তু এ বছর কাটা ধান গাছের গোড়া থেকে নতুন চারার ধান দেখে অবাক হয়েছি। অনেকে এ ধান সংগ্রহ করে লাভবান হয়েছেন। উপজেলা কৃষি অফিসার মো. আফজাল হোসেন বলেন, এটিকে ‘রেটুন ক্রপ’ বলা হয়। এ পদ্ধতিতে ধান চাষ করা যায়। বিশেষ করে ব্রি ধান-২৮ ও ২৯ ধানের গোড়া কাঁচা থাকে। তাই ধান কাটার পর এসব ধান গাছের নাড়া (গাছের মুড়া) থেকে কুশি বের হয়। আর এসব কুশি থেকে পুনরায় ধান উৎপাদন সম্ভব। এ বছর উপজেলার বেশ কয়েকটি গ্রামের অনেক কৃষক ‘রেটুন ক্রপ’ (নাড়া থেকে ধানচাষ) করছেন। আমি তাদেরকে স্বাগত জানাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *