সোমবার, ডিসেম্বর ১১, ২০১৭, ১:৪৩:৪৫ অপরাহ্ণ
Home » আন্তর্জাতিক » জেরুজালেমকে স্বীকৃতি দিচ্ছেন ট্রাম্প

জেরুজালেমকে স্বীকৃতি দিচ্ছেন ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আজ একতরফাভাবে জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা দেবেন বলে সিনিয়র প্রশাসনিক কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

তবে ট্রাম্প মার্কিন দূতাবাস এখনই তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে সরিয়ে নেবেন না বলেও জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তারা।

ট্রাম্প এ বিষয়ে বুধবার ভাষণ দিতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এর আগে আরব লীগ নেতারা মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে সরানোর বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়েছে। এদের একজন বলেছেন, এই ধরণের পদক্ষেপ মুসলিম বিশ্বের বিরুদ্ধে একধরনের উস্কানি।

জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিলে ১৯৪৮ সালে রাষ্ট্রটি প্রতিষ্ঠার পর যুক্তরাষ্ট্রই হবে প্রথম দেশ।

ট্রাম্প প্রশাসনের কর্মকর্তারা বলেন, জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়াকে প্রেসিডেন্টের ‘স্বীকৃতির বাস্তবতা’ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

এছাড়া ট্রাম্প মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করতে পররাষ্ট্র দফতরকে নির্দেশ দিয়েছেন। তবে এ জন্য কয়েক বছর সময় লাগতে পারে।

আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগে ট্রাম্প কয়েকজন আঞ্চলিক নেতাকে ফোন করে বলেন যে, তিনি মার্কিন দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করেছেন।

মার্কিন পদক্ষেপ নিশ্চিতকরণের আগে ট্রাম্পকে সৌদি আবরের বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল-সৌদ বলেছেন, দূতাবাস স্থানান্তর বা জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিলে বিশ্বব্যাপী মুসলিমদের মধ্যে ভয়াবহ উত্তেজনা সৃষ্টি হবে।
হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, ইসরায়েলী প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুসহ মধ্যপ্রাচ্যে নেতাদের সাথে মঙ্গলবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কথা বলেছেন।

ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের কার্যালয় থেকে দেয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মঙ্গলবার ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্টকে ফোন করেন এবং তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস সরিয়ে জেরুজালে নেয়ার কথা জানান। তবে শ্রীঘ্রই তিনি দূতাবাস সরাতে চান নাকি বিষয়টিতে দেরি করবেন তা ওই বিবৃতিতে বলা হয়নি।

ফোনালাপে আব্বাস এ ধরনের পদক্ষেপের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, এর পরিণতি হবে মারাত্মক এবং কথিত শান্তি আলোচনা মধ্যপ্রাচ্যের নিরাপত্তা, স্থিতিশীলতা ও গোটা বিশ্বের নিরাপত্তার ওপর প্রভাব ফেলবে।

ট্রাম্পের স্বীকৃতি দেয়ার বিষয়ে তুরস্ক ও ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থা বিরোধিতা করছে। ইইউ’র পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান ফেদেরিকা মোগেরিনি বলেছেন, দুই রাষ্ট্রভিত্তিক সমাধানকে যেসব পদক্ষেপ বাধাগ্রস্ত করে তা সম্পূর্ণভাবে বর্জন করতে হবে।

ব্রাসেলসে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনের সঙ্গে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেছেন।

ট্রাম্প তার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী, এই ঘোষণা দিতে যাচ্ছেন।ট্রাম্পের এমন সিদ্ধান্তের ফলে যুক্তরাষ্ট্রের কয়েক দশকের নীতি লঙ্ঘন হবে। জেরুজালেমের ভাগ্য নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কোনো নেবে না এবং এই বিষয়ে ইসরাইল ও জেরুজালেম আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবে। এমন নীতিই মেনে আসছে যুক্তরাষ্ট্র।

বর্তমানে জেরুজালেম শহর ইসরাইলের দখলে রয়েছে এবং এ শহরেই রয়েছে মুসলমানদের তৃতীয় পবিত্রতম স্থান মসজিদুল আকসা। ১৯৬৭ সালের আরব-ইসরাইল যুদ্ধের সময় শহরটি দখল করে নেয় ইসরাইল এবং আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে শহরটি ইসরাইলের জবরদখলে রয়েছে বলে গণ্য করা হয়। সূত্র: বিবিসি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *