বুধবার, অক্টোবর ২৪, ২০১৮, ১:৩১:০৬ পূর্বাহ্ণ
Home » অর্থনীতি » খোকসার কুমারপাড়ায় মৃৎশিল্পে দুর্দিন

খোকসার কুমারপাড়ায় মৃৎশিল্পে দুর্দিন

আমাদের চারপাশে বিভিন্ন পেশার মানুষ বসবাস করে। এদের মধ্যে মৃতশিল্পের সাথে জড়িত আছে একশ্রেনীর মানুষ ,এদের কে কুমার বা পাল বংশ বলে ।বিচিত্র জিবন ধারায় এরা জিবন ধারন করেন । কাঁদামাটি দিয়ে তৈরি করা হয় দৈনন্দন জিবনে ব্যাবহার জগ্য মাটির বাসন কাশন । হাড়ী পাতিল মালসা ও কলসি সহ নানা বিধ আসবাব পত্র । দুশপ্রাপ্য এটেলে মাটি ,কাঠের খড়ি এবং ঘরে বাহিরে দু জনের অক্লান্ত পরিশ্রমে ঐ কাদামাটি একসময় তৈরি হয় সুন্দর বাসন কাশন । আগুনে পুড়ায়ে তৈরি করা হয় ব্যাবহার যোগ্য বাসন কাশধ । এতেই ক্ষান্ত নই . নিজেবহন করে দুরের কোন বাজারে নিয়ে বিক্রয় করে যা পায় তা দিয়ে জিবন ধারনের উপকরন ক্রয় করে নিয়ে যায় বাড়িতে । বংশানুক্রমে এ পেশায় নিয়োজিত হয়ে পড়ে বলে সহজে এদের ভাগ্যের পরিবর্তন হয় না । হিন্দু ধর্মের নিম্ন বংশের জাতি হিসাবে এদের আত্ম মর্জাদা অনেকটাই কোম দেওয়া হয় । কথা হচ্ছিল রতন পালের সাথে , তিনি বললেন ৩মেয়ে ও ১ ছেলে সহ ৬ জনের সংসারে যা আয় করি তা দিয়ে বর্তমান বাজারে চলা খুবই কষ্ট । গ্রামিন ব্যাংকের কিস্তির টাকা পরিশোধ করে এক সপ্তার যা আয় তা আর কিছুই থাকে না । কি করার আছে । অন্য কোন উপায় পেলে এ পেশা ছেড়ে দিতাম । বাজারে মাল পত্র নেওয়ার জন্য একটি ভ্যান কিনেছিলাম মাঝেমধ্যে যাত্রি ভাড়া মারি বেশ টাকা আয় হয় । ভাবছি পেষাটা পরিবর্তন করবো । আমরা চায় আমাদের চারপাশের এ সব পেশার সকল পেশার মানুষ নিজ নিজ পেষায় নিয়োজিত থাক ।

Setu

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *