সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০১৯, ৯:০১:২৭ পূর্বাহ্ণ
Home » অন্যান্য » কুষ্টিয়া কুমারখালীতে নষ্ট ইট দিয়ে রাস্তার কাজের অভিযোগ!

কুষ্টিয়া কুমারখালীতে নষ্ট ইট দিয়ে রাস্তার কাজের অভিযোগ!

কুমারখালী প্রতিনিধি :
এক প্রকার নষ্ট ইট দিয়ে রাস্তা নির্মানের কাজ চলছে। কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার চৌরঙ্গি বল্লভপুর বাজার থেকে এনায়েতপুর পরানপুর ব্রিজ পর্যন্ত নষ্ট ইট দিয়ে রাস্তার কাজের অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী। সরেজমিনে ওই এলাকায় গিয়ে দেখা যায় রাস্তার দুই পাশ দিয়ে এজিং এর কাজ করছে কয়েকজন শ্রমিক। সেখানে দেয়া হচ্ছে রেন স্পট ইট। সেই ইটের কোন নামই বোঝা যাচ্ছে না। এ বিষয়ে ওই এলাকার কয়েকজন ব্যক্তি জানান, গত কয় দিন আগে তারা অভিযোগ জানাতে গেলে তাদেরকে বিভিন্নভাবে হুমকি প্রদর্শন করে ঠিকাদার তুষার। তারা আরো জানান, ঠিকাদার তুষার তাদেরকে ৬ হাজার টাকার বিনিময় গুম করে ফেলার হুমকি দেয়। স্থানীয় শফিকুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি জানান, এখানে নষ্ট ইট দিয়ে রাস্তার কাজ করা হচ্ছে। এই নিন্ম মানের ইট দিয়ে তৈরী কাজের এলজিইডির তত্ত্বাবধায়ক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল ওহাবকে বিষয়টি অবগত করলে আব্দুল ওয়াহাব ঘটনাস্থলে আসেন এবং নিম্নমানের ইট দিয়ে কাজ করা হচ্ছে বিষয়টি স্বীকার করে চলে যান। কোনো এক অজ্ঞাত কারণেই এই কাজটি বন্ধ করা হয়নি বলেও অভিযোগ ওঠে। এই বিষয়ে ইঞ্জিনিয়ার ওহাবের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এখানে ১ কোটি ৩৯ লক্ষ টাকার কাজ করা হচ্ছে। আমি ইতিপূর্বে এমন অভিযোগ পেয়েছি এবং সরেজমিনে গিয়ে সেই সময় কাজ বন্ধ করে দিয়ে আসি। পরবর্তীতে তারা ভাল ইট দিয়ে কাজ করার প্রতিশ্র“তি দিয়ে কাজ শুরু করেছে। নিন্ম মানের ইট দিয়ে যদি কাজ করা হয় তবে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নিম্নমানের ইট দিয়ে কাজ করা হচ্ছে এই অভিযোগের ভিত্তিতে ঠিকাদার তুষারের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ১ নাম্বাার ইটের যে পরিমাণ দাম সেই দাম দিয়ে ইট ক্রয় করে কাজ করা সম্ভব নয়। এলজিইডির অধিকাংশ কাজেই লস হচ্ছে। এই লাইসেন্স আমার নয় আমি অন্যের লাইসেন্স এর মাধ্যমে কাজ করছি। এখানে ৩ কিঃমিঃ রাস্তা ৮৬ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নির্মান করা হচ্ছে। আমি সাবেক ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি। এ বিষয়ে কুমারখালি এলজিইডি থানা ইঞ্জিনিার আব্দুর রহিম বলেন, এক সপ্তাহ আগে আমি সাইডে গিয়েছিলাম। ঠিকাদারকে এক নাম্বার ইট দিয়ে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছি। যদি আবারো খারাপ ইট দিয়ে কাজ করে থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কুষ্টিয়া এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী শাহেদ করিম জানান, আমি নিজে কালই ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিদর্শন করবো। সরকারী বিধি অনুযায়ী কাজ না হলে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *